আস্ক প্রশ্নে আপনাকে স্বাগতম ! এটি একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। এই সাইট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন ...
175 বার প্রদর্শিত
"বাংলাদেশ" বিভাগে করেছেন (161 পয়েন্ট) 10 112 165

2 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (685 পয়েন্ট) 4 10 29
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

নিপা ভাইরাস প্রথম নজরে আসে মালয়েশিয়ায় ১৯৯৯ সালে। সেই সময় মালয়েশিয়ার আচেহ প্রদেশের নিপাহ গ্রামে শূকর পালকদের মধ্যে এ ভাইরাসজনিত রোগ মহামারী আকারে দেখা দেয়। মালয়েশিয়ায় শূকর থেকে মানুষের শরীরে নিপা ভাইরাসজনিত রোগ সংক্রমিত হয়েছিল। গ্রামটির নামানুসারেই রোগটির নাম দেওয়া হয় নিপা ভাইরাস। এ রোগ শুধু শূকরের দেহে নয়, বাদুড়ের শরীরেও থাকে। বাদুড়ের লালা ও প্রস্রাবের মাধ্যমে এসব ভাইরাস মানুষের শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। বাংলাদেশে বাদুড় থেকে মানুষের শরীরে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে বেশ কয়েকবার তা মহামারী আকার ধারণ করেছিল।

লক্ষণ : নিপা ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে মস্তিষ্কে প্রদাহ বা এনকেফালাইটিস এবং শ্বাসতন্ত্রের রোগ সৃষ্টি করে। ভাইরাসগুলো শরীরে প্রবেশ করার ৪ থেকে ৪৫ দিনের মধ্যে রোগের লক্ষণ প্রকাশ পায়। ইনফ্লুয়েঞ্জারের মতো জ্বর, মাথাব্যথা, পেশিতে ব্যথা, বমি ইত্যাদি থেকে শুরু করে মাথা ঘোরা, শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া, অজ্ঞান হয়ে যাওয়াÑ এসব লক্ষণ দেখা দেয়। নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত ৪০ থেকে ৭৫ শতাংশ রোগীই মারা যায়। বেঁচে যাওয়া রোগীদের প্রায় ১৫-২০ শতাংশ ক্ষেত্রে স্নায়বিক দুর্বলতা থেকে যায়।

যেভাবে ছড়ায় : আমাদের দেশে শীতকালে বিশেষভাবে খেজুরগাছ কেটে তাতে রাতে হাঁড়ি বেঁধে রস সংগ্রহ করা হয়। সেই হাঁড়ি থেকে রাতে বাদুড়ও রস পান করে থাকে। এ সময় বাদুড়ের লালা থেকে নিপা ভাইরাস হাঁড়ির রসে চলে যায়। বাদুড়ের প্রস্র্রাব দিয়েও খেজুরের রস সংক্রমিত হতে পারে। এ ছাড়া গাছে বাদুড়ে খাওয়া ফলেও নিপা ভাইরাস প্রবেশ করে। বাদুড়ের লালা বা প্রস্রাব দিয়ে সংক্রমিত খেজুরের রস কিংবা বাদুড়ে খাওয়া ফলমূল খেলে নিপা ভাইরাস মানবেেদহে প্রবেশ করে। বাংলাদেশে খেজুরের রস পান করার মাধ্যমেই এ ভাইরাসজনিত মহামারীগুলো সংঘটিত হয়েছিল।

চিকিৎসা : নিপা ভাইরাসের সুনির্দিষ্ট কোনো চিকিৎসা নেই। চিকিৎিসা দিতে হয় লক্ষণের ওপর ভিত্তিক করে।

প্রতিরোধ : নিপা ভাইরাস প্রতিরোধে কোনো টিকা নেই। যেহেতু সংক্রমিত খেজুরের রস ও বাদুড়ে খাওয়া ফলমূলের মাধ্যমে ভাইরাসগুলো মানবদেহে প্রবেশ করে থাকে, তাই কাঁচা খেজুরের রস পান ও বাদুড়ে খাওয়া ফলমূল খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। খেজুরের রস ভালো করে ফুটিয়ে নিলে এ ভাইরাস মারা যায়। আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শ থেকে দূরে থাকতে হবে। ভালো করে ঘন ঘন হাত ধুয়ে নিতে হবে।

উৎসঃ আমাদের সময়

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (8,267 পয়েন্ট) 31 124 271
নিপা,,,,,,,,,,,,,,,,,।
আ ক ম আজাদ আস্ক প্রশ্ন ডটকমের সাথে আছেন সমন্বয়ক হিসাবে। বর্তমানে তিনি একজন শিক্ষক। আস্ক প্রশ্ন ডটকমকে বাছাই করে নিয়েছেন জ্ঞান আহরণ ও জ্ঞান বিতরণের মাধ্যম হিসাবে। ভবিষ্যতে একজন বক্তা ও লেখক হওয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছেন। এই আশা পূর্ণতা পেতে সকলের নিকট দু'আপার্থী।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
1 উত্তর
1 উত্তর
23 মার্চ 2018 "বাংলাদেশ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ALAmin (161 পয়েন্ট) 10 112 165
2 টি উত্তর
23 মার্চ 2018 "বাংলাদেশ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Nisat (46 পয়েন্ট) 4 5

27,720 টি প্রশ্ন

29,418 টি উত্তর

3,127 টি মন্তব্য

2,802 জন সদস্য



আস্ক প্রশ্ন এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে কমিউনিটির এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যের মাধ্যমে আপনার প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান পেতে পারেন এবং আপনি অন্য জনের প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান দিতে পারবেন। মূলত এটি বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য।

  1. refatrayan

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  2. নাজমুল হাসান মুন্না

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  3. techbd

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  4. Home Ctg

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  5. Masumul Haqaue

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

শীর্ষ বিশেষ সদস্য

16 টি পরীক্ষণ কার্যক্রম
...