আস্ক প্রশ্নে আপনাকে স্বাগতম ! এটি একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। এই সাইট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন ...
121 বার প্রদর্শিত
19 মার্চ 2018 "ইসলাম ধর্ম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (196 পয়েন্ট) 28 124 206

1 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
19 মার্চ 2018 উত্তর প্রদান করেছেন (8,267 পয়েন্ট) 27 102 235
আজকাল আমাদের দেশে চেয়ারে বসে নামায পড়া ফ্যাশন হয়ে গেছে। যা কিছুতেই কাম্য নয়। এখানে কয়েকটি বিষয় ভাল করে লক্ষ্য রাখতে হবে।
১ নং মাসআলা
যে ব্যক্তি রুকু সেজদা করতে সক্ষম উক্ত ব্যক্তি যদি চেয়ারে বসে নামায পড়ে তাহলে উক্ত ব্যক্তির নামায হবে না। কারণ রুকু সেজদা নামাযের রুকন। তা কারণ ছাড়া ছেড়ে দিলে নামায হবে না।
ﻣﻦ ﻓﺮﺍﺋﻀﻬﺎ ﺍﻟﻘﻴﺎﻡ ﻓﻰ ﻓﺮﺽ ﻟﻘﺎﺩﺭ ﻋﻠﻴﻪ ﻭﻋﻠﻰ ﺍﻟﺴﺠﻮﺩ، ﺍﻟﺪﺭ ﺍﻟﻤﺨﺘﺎﺭ ﻣﻊ ﺭﺩ ﺍﻟﻤﺤﺘﺎﺭ - 2/132 )
এমনকি যদি কিছু সময় দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। দীর্ঘক্ষণ দাঁড়াতে পারে না। উক্ত ব্যক্তি যদি যতটুকু সময় দাঁড়াতে পারে ততটুকু সময় দাঁড়ানোর চেষ্টা না করেই বসে নামায পড়ে, তাহলেও উক্ত ব্যক্তির নামায হবে না। যতক্ষণ সময় দাঁড়াতে পারে ততক্ষণ দাঁড়াবে। তারপর যখন দাঁড়াতে অক্ষম হয়ে যাবে, তখন বসে যাবে। এমনকি যদি লাঠিতে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পারে বা হেলান দিয়ে দাঁড়াতে পারে, তাহলে যদি নিকটে লাঠি থাকে বা হেলান দেবার সুযোগ থাকে, তাহলে লাঠিতে ভর দিয়ে বা হেলান দিয়ে হলেও দাঁড়িয়ে নামায আদায় করবে। বসবে না। যদি লাঠি বা হেলান দেয়ার সুযোগ থাকা সত্বেও অযথাই বসে নামায পড়ে তাহলেও উক্ত ব্যক্তির নামায হবে না।
তবে যদি একদম দাঁড়াতেই না পারে, বা দাঁড়ালে মাথা ঘুরে পড়ে যায়, তাহলে বসে নামায পড়ার সুযোগ রয়েছে।
ﻭﺍﻥ ﻗﺪﺭ ﻋﻠﻰ ﺑﻌﺾ ﺍﻟﻘﻴﺎﻡ ﻭﻟﻮ ﻣﺘﻜﺌﺎ ﻋﻠﻰ ﻋﺼﺎ ﺃﻭ ﺣﺎﺋﻂ ﻗﺎﻡ ﻟﺰﻭﻣﺎ ﻭﻣﺎ ﻗﺪﺭ ﻣﺎ ﻳﻘﺪﺭ ﻭﻟﻮ ﻗﺪﺭ ﺁﻳﺔ ﺃﻭ ﺗﻜﺒﻴﺮﺓ ﻋﻠﻰ ﺍﻟﻤﺬﻫﺐ ﻷﻥ ﺍﻟﺒﻌﺾ ﻣﻌﺘﺒﺮ ﺑﺎﻟﻜﻞ، ‏( ﺍﻟﺪﺭ ﺍﻟﻤﺨﺘﺎﺭ ﻣﻊ ﺭﺩ ﺍﻟﻤﺤﺘﺎﺭ - 2/267 )
২ নং মাসআলা
যে ব্যক্তি বসে রুকু ও সেজদা করতে সক্ষম উক্ত ব্যক্তির জন্য চেয়ারে বসে নামায জায়েজ নয়। সেজদা করতে সক্ষম হওয়া সত্বেও চেয়ারে বসে নামায পড়লে নামায হবে না। কারণ সেজদা নামাযের একটি স্বতন্ত্র রুকন। যা কোন কারণ ছাড়াই ছেড়ে দেয়া হচ্ছে। আর নামাযের কোন রুকন কারণ ছাড়া ছেড়ে দিলে নামায হয় না।
ﻭﺇﻥ ﻋﺠﺰ ﻋﻦ ﺍﻟﻘﻴﺎﻡ ﻭﻗﺪﺭ ﻋﻠﻰ ﺍﻟﻘﻌﻮﺩ، ﻓﺈﻧﻪ ﻳﺼﻠﻰ ﺍﻟﻤﻜﺘﻮﺑﺔ ﻗﺎﻋﺪﺍ ﺑﺮﻛﻮﻉ ﻭﺳﺠﻮﺩ ﻭﻻ ﻳﺠﺰﻳﻪ ﻏﻴﺮ ﺫﻟﻚ، ‏( ﺗﺎﺗﺎﺭﺧﺎﻧﻴﺔ - 2/667 )
৩ নং মাসআলা
যে ব্যক্তি জমিনের উপর সিজদা করতে অক্ষম) যদি দাঁড়িয়ে নামায আদায় করতে সক্ষম হয় তাহলে তাকে দাঁড়িয়েই নামায আদায় করতে হবে। আর যেহেতু সে সিজদা করতে অক্ষম তাই সে ইশারায় সিজদা করবে (যদি রুকু করতেও অক্ষম হয় তাহলে রুকুও ইশারায় আদায় করবে)। জমিনে সিজদা করতে অক্ষম হওয়ার কারণে দাঁড়ানোর ফরয ছাড়া যাবে না। {‘ফাতহুল কাদীর’ খ. ১ পৃ. ৪৬০,‘আননাহরুলফায়েক খ. ১ পৃ. ৩৩৭এবং ‘ইলাউস সুনান খ. ৭ পৃ. ২০৩}
আ ক ম আজাদ আস্ক প্রশ্ন ডটকমের সাথে আছেন সমন্বয়ক হিসাবে। বর্তমানে তিনি একজন শিক্ষক। আস্ক প্রশ্ন ডটকমকে বাছাই করে নিয়েছেন জ্ঞান আহরণ ও জ্ঞান বিতরণের মাধ্যম হিসাবে। ভবিষ্যতে একজন বক্তা ও লেখক হওয়ার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছেন। এই আশা পূর্ণতা পেতে সকলের নিকট দু'আপার্থী।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
10 ফেব্রুয়ারি 2018 "ইসলাম ধর্ম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Ayaan (2,778 পয়েন্ট) 103 266 394
1 উত্তর
1 উত্তর

27,639 টি প্রশ্ন

29,380 টি উত্তর

3,122 টি মন্তব্য

2,584 জন সদস্য



আস্ক প্রশ্ন এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে কমিউনিটির এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যের মাধ্যমে আপনার প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান পেতে পারেন এবং আপনি অন্য জনের প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান দিতে পারবেন। মূলত এটি বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য।

  1. Nur Amin

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  2. আসিফ মাহমুদ

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  3. Md sahin ahmed

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  4. নিলয় পারভেজ

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

  5. হুজায়ফা আহমাদ

    50 পয়েন্ট

    0 উত্তর

    0 প্রশ্ন

শীর্ষ বিশেষ সদস্য

18 টি পরীক্ষণ কার্যক্রম
5 টি পরীক্ষণ কার্যক্রম
3 টি পরীক্ষণ কার্যক্রম
1 টি পরীক্ষণ কার্যক্রম
...